قال الامام باقر (ع ) : بنی الاسلام علی خمس : الصلوة و الزکوة و الصوم و الحج و الولایة. کافی ، ج 2، ص 17
ইমাম বাকের (আ.): ইসলামের স্তম্ভ পাঁচটি: নামায, যাকাত, রোজা, হজ্ব ও বেলায়াত। কাফি, ২য় খন্ড, পৃষ্ঠা: ১৭।
Share

ইবনে মুলজাম কিভাবে ইমাম আলী (আ.) এর হত্যাকারী হয়?

হজরত আলী (আ.) এর খেলাফতের সূচনা লগ্নে হাবীব বিন মুন্তাজাব ছিল ইয়ামেনের শাষক। ইমাম আলী (আ.) তাকে ইয়ামেনের জনগণের কাছ থেকে বাইয়াত নেয়ার জন্য চিঠি লিখেন। হাবীব ১০ জন উপযুক্ত

হযরত ইমাম হোসাইন বিন আলী আ


হযরত ইমাম হোসাইন বিন আলী আ
এই অনন্য ব্যক্তিত্ব। যিনি দীর্ঘদিন ধরে ইতিহাস ও ঐতিহাসিকদের চিন্তা চেতনাকে প্রবলভাবে আলোড়িত করে আসছেন। ভবিষ্যতেও এ আলোড়ন অব্যাহত থাকবে। তিনি এমন এক মহান চরিত্র যিনি ইসলামের ইতিহাসকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করে আছেন। যখনই তাঁর কথা আলোচনা করা হয় তখনই বিশ্বাসী মুসলমান

ইমাম যামানার(আঃফাঃ) বিশেষ সঙ্গী সাথীদের বাই’আত করার শর্ত

হযরত আলী(আলাইহিস্ সালাম) তাঁর বিখ্যাত খুত্‌বা আল্-বায়ান যা বস্‌রা নগরীতে প্রদান করেছিলেন, তাতে বলেছেন:

ইমাম হোসেনের (রাঃ) আন্দোলনের তাৎপর্য

কারবালায় হযরত ইমাম হোসেনের (রাঃ) শাহাদাত অনন্ত কাল ধরে সত্যসংগ্রামীদের অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে। তবে তাঁর আন্দোলনের কারণ ও শিক্ষা সম্বন্ধে যুগে যুগে যে সব মূল্যায়ন হয়েছে তার মধ্যে যথেষ্ট পার্থক্য লক্ষ্য করা যায়। এ সব মূল্যায়নে তাঁর এবং তাঁর সঙ্গীসাথী ও পরিবারের প্রতি ভক্তি, ভালোবাসা ও সমবেদনা অভিন্ন উপাদান। কিন্তু তাঁর আন্দোলনের স্বরূপ ও কারণ সম্বন্ধে বিভিন্ন মত প্রকাশিত হয়েছে। বলা বাহুল্য যে, এ আন্দোলনের স্বরূপ ও কারণ সম্পর্কিত মূল্যায়ন যত বেশী নির্ভুল হবে তাঁর এবং তাঁর সঙ্গীসাথী ও পরিবারের ত্যাগ ও আত্মত্যাগ থেকে আমরা তত বেশী সঠিক শিক্ষা লাভ করতে ও উপকৃত হতে পারবো

পবিত্র কোরআন ও ইমাম মাহদী (আ. ফা.)

 এটা স্পষ্ট যে, পৃথিবীর ব্যাপক ঘটনাবলী কোরআনের ঐশী আয়াতের মধ্যে নিহিত রয়েছে এবং কেবলমাত্র যারা তার গভীরে পৌঁছতে পারবে তারাই এ সত্যকে উপলব্ধি করতে পারবে তারা মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) ও তাঁর পবিত্র আহলে বাইত (আ.) গণই হচ্ছেন কোরআনের প্রকৃত কর্ণধার ও মোফাস্সের

ইমাম রেযা (আ.) এর জ্ঞানগত ও তফসিরগত সংক্ষিপ্ত পরিচয়

 ইমামতের ধারার এ অষ্টম ইমাম তাঁর স্বাধীন পূর্বপুরুষদের মত জ্ঞানগত উচ্চ মর্যাদার অধিকারী ছিলেন; যার কারণে তাঁকে "আলেমে আলে মোহাম্মদ" নামে পদবী প্রদান করা হয়েছে।

জন্ম

ইমাম রেযা (আ.) এর জন্ম সম্পর্কে ঐতিহাসিকগণ বিভিন্ন মত পোষণ করেছেন; বিখ্যাত ঐতিহাসিকগণ ও হাদিস বর্ণনাকারীরা এ ইমামের জন্ম তারিখকে ১১ই যিল কাদা ১৪৮ হিজরী রোজ বৃহস্পতিবার কিম্বা শুক্রবার বলে উল্লেখ করেছেন।(১) আবার অনেকে ১৫৩ হিজরী বলে বর্ণনা করেছেন।(২)

Developed By: Rashed Hossain Najafi
Hussaini Dalan Imambara | Promote Your Page Too
Ya Hussain A.S